Ramlala Temple: রামলালা দর্শনে ৫ লক্ষ, ভিড়ে ভাঙল ব্যারিকেড

Ramlala Temple: পাঁচ লক্ষ ভক্তের দর্শনহলো রামলাল মন্দিরে। তবে জনদর্শনের প্রথম দিনেই চূড়ান্ত অবশৃঙ্খলার সাক্ষী থাকল রামমন্দির।

গত কাল মন্দির উদ্বোধনের পরে আজ থেকেই রামমন্দির আমজনতার জন্য খুলে দেওয়া হয়। কিন্তু দেখা গেল, প্রথম দিনের ভিড় সামলাতে গিয়ে ব্যর্থ হল উত্তরপ্রদেশ এর থানার পুলিশ। এমন পরিস্থিতি তৈরী হলো যে পুলিশ লাঠি চালাতে বাধ্য হলো।

অসম্পূর্ণ মন্দির বলে দিয়ে ভক্তদের প্রাণের ঝুঁকি নিতে বাধ্য করা হল কেন। আজ বিকেলে রামলীলা মন্দিরে যান উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ। ভিড় নিয়ন্ত্রণের অবস্থা নিয়ে কথা বলেন মন্দির ইপক্ষের সঙ্গে।

শীতের তীব্র কামড় উপেক্ষা করে আজ ভোর ৩টে থেকেই ভিড় জমাতে করেছিল রামলালা দর্শনে ভক্তরা। সকাল ৭টায় মন্দির খোলার পর্বে প্রবেশদ্বারের সামনে হালকা ধাক্কাধাক্কি হলেও, তা সামলে নিয়েছিলেন নিরাপত্তারক্ষীরা।

Ramlala Mandir
Ramlala Mandir

প্রথম দফায় বেলা ১১টা পর্যন্ত চলে দর্শন। তার পরে মন্দির বন্ধ হয়ে যায়। যা ফের বেলা ২টো থেকে রাত ৭টা খোলা থাকার কথা। কিন্তু মন্দির বন্ধ থাকার বিষয়ে কোনও তথ্য ভক্তদের মধ্যে না থাকায় ভিড় ক্রমশ বাড়তে থাকে চত্বরে।

এক দিকে মন্দির বন্ধ, অন্য দিকে নিরন্তর ভক্তদের আগমন, ফলে মন্দির বন্ধ হওয়ার আধ ঘণ্টার মধ্যেই গোটা রামপথের দু’প্রান্ত ভক্তদের দখলে চলে যায়। দু’প্রান্ত থেকে আসা ভিড়কে পুলিশ মন্দিরের অনেক আগেই সে ভাবে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা না করায় ভিড়ের চাপ ক্রমশ বাড়তে থাকে।

মূল প্রবেশ পথের সামনে বেলা ১২টা। ভিড়ের প্রবল ঢেউ আছড়ে পড়তে থাকে ব্যারিকেডের উপর। উপস্থিত পুলিশকর্মী ও র‍্যাফ জওয়ানেরা সবাইকে মূল প্রবেশদ্বারের সামনে বসে পড়ার নির্দেশ দিয়ে ভিড় সামলানোর চেষ্টা করেন বটে। কিন্তু বিশেষ লাভ হয়নি।

রামলালার মূর্তির উচ্চতা হলো ৫১ ইঞ্চি। প্রায় ২০০ কিলোগ্রাম ওজন এই রামলালা মূর্তির। শ্রীরাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্টের তরফে জানানো হয়েছে যে, প্রায় ৩০০ কোটি বছরের পুরনো কৃষ্ণশিলা দিয়ে তৈরি করা হয়েছে এই মূর্তি।

কর্নাটকের মাইসুরু জেলায় পাওয়া যায় এই কৃষ্ণশিলা। এই শিলার রং কুচকুচে কালো। কৃষ্ণের গায়ের রঙের সঙ্গে মিল থাকায় এই শিলার নাম রাখা হয় কৃষ্ণশিলা।

কৃষ্ণশিলার মূল উপাদান ক্যালসাইট। ক্যালসিয়াম কার্বনেটের সবচেয়ে স্থায়ী রূপ হলো এটি। কৃষ্ণশিলা দিয়ে মূর্তি তৈরি করতে পছন্দ করেন ভাস্কররাও।

খননের সময় যে কৃষ্ণশিলা উঠে আসে তা সাধারণত নরম প্রকৃতির হয়। তবে খোলামেলা পরিবেশে দীর্ঘ দিন থাকলে সেই শিলা ধীরে ধীরে শক্ত হয়ে যায়। তার পর তা দিয়ে মূর্তি গড়তে গেলে অসুবিধা হয়।

Ramlala Mandir
Ramlala Mandir

বাইরের পরিবেশে কৃষ্ণশিলা রেখে দিলে তা দুই থেকে তিন বছরের মধ্যে কঠিন হয়ে যায়। কঠিন হয়ে যাওয়ার আগেই সাধারণত শিলার উপর খোদাইয়ের কাজ সম্পূর্ণ করে ফেলেন ভাস্করেরা।

রামমন্দিরের গর্ভগৃহে রামলালার যে মূর্তিটি স্থাপন করা হয়েছে তা তৈরি করেছেন কর্নাটকের ভাস্কর অরুণ যোগীরাজ। ছ’মাস ধরে কৃষ্ণশিলা দিয়ে রামলালার মূর্তিটি খোদাই করেছেন তিনি।

রামমন্দিরের গর্ভগৃহে রামলালার যে মূর্তিটি রয়েছে তা দাঁড় করানো ভঙ্গিমায় রয়েছে। রামলালা পাঁচ বছর বয়সি বালক।

অরুণ যোগীরাজের তৈরি বিগ্রহটির সামনেই রাখা হয়েছে রামলালার পুরনো মূর্তি। শ্রীরাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্টের তরফে জানানো হয়েছে যে পুরনো মূর্তির উচ্চতা অনেকটাই কম।

Ramlala Temple
Ramlala Temple
HomeClick Here
Google NewsFollow
Telegram GroupJoin Us

Hello

Leave a comment